হোসেনপুরে জ্বালানি লাকড়ির চরম অভাব: বাড়ছে গোবরের ঘুঁটের ও মুইট্টা ব্যবহার

প্রকাশিত: ৩:৫৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০ প্রিন্ট করুন

আশরাফ আহমেদ, নিজস্ব প্রতিবেদক: কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে রান্নার জ্বালানিতে লাকড়ি চরম অভাব থাকায় গোবরের তৈরি ঘুঁটে ও মুইট্টা ব্যবহার বাড়ছে দিনের পর দিন। ওই এলাকায় বনাঞ্চল কমে যাওয়ায় ও খরকোটা না থাকায় গোবরের ঘুঁটের ও ঘৈডাকেই রান্নার লাকড়ি হিসেবে বেছে নিয়েছেন তারা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে নিম্নবিত্ত মহিলারা গোবরের ঘুঁটে ও ঘৈডা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। সাধারণত গোবর শলার লাকড়ি তৈরির আগে পরিমাপ মতো পাটখড়ি কেটে গোবর ও তুষ (কুড়া) একত্রে মিশিয়ে পাটখড়ির সঙ্গে এঁটে রোদে শুকাতে হয়। পাশাপাশি মুঠো করে ঘষি বানিয়ে রোদে শুকিয়েও ব্যবহার করা যায়। যাদের গরু আছে কিন্তু আবাদি জমি নেই তারাও কৃষকদের কাছে গোবর বিক্রি করছেন।
এ উপজেলায় দিন দিন জ্বালানি সংকট মারাত্বক আকার ধারণ করায় জ্বালানী সংকটের কারণে সবচেয়ে বেশি কষ্ট করতে হচ্ছে গ্রামাঞ্চলের নিম্নবিত্ত ও দরিদ্র জনগোষ্ঠির পরিবারগুলোকে। জ্বালানীর অভাবে চুলা জ্বালাতে পারছেনা দরিদ্র জনগোষ্ঠির গৃহিণীরা।

এ সময় উপজেলার জিনারী ইউনিয়নের চরকাটারী গ্রামের সালেহা,হনুফা, সাহেবের চর গ্রামের কুলসুমসহ অনেকেই জানান , আমাদের নিজের গরু থেকে যে পরিমাণ গোবর আসে তা দিয়ে ঘুঁটে ও ঘৈডা তৈরি করে আমাদের রান্নাবান্নার জ্বালানি মিটায় । এতে পরিবারের জ্বালানির খরচ না থাকায় বাড়তি আয় হচ্ছে বলে ও জানান তারা।