গাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক অনুষ্ঠানে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার

প্রকাশিত: ১০:৪২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২০ প্রিন্ট করুন

মহিদুল আলম চঞ্চল(নিজস্ব প্রতিবেদক)-  গাজীপুর জেলায় ৩৭৫ টি বিদ্যালয় এর মধ্যে একমাত্র গাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বহুমুখী ভিন্নতার রূপে ক্রীড়া সাংস্কৃতি উপস্থাপন আমাকে বিমোহিত করেছে আমার চাকরি জীবনের সেরা বিনোদন উপভোগ করলাম এমনটাই বলছিলেন প্রধান অতিথি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ মোফাজ্জল হোসেন।

২৬ ফেব্রুয়ারি বুধবার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন উপলক্ষে গাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া ,সাংস্কৃতিক এবং পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

বিদ্যালয় চত্বর বিভিন্ন ফুলে ফুলে পতাকা দিয়ে সাজিয়ে বেলুন দিয়ে ভিন্ন আবহে মাঠে ক্রীড়া সাংস্কৃতি প্রদর্শনী ছাত্র-ছাত্রী অভিভাবক সম্মানিত অতিথিবৃন্দ সকলেই ভিন্নতায় অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।
সকাল ৯ টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে জাতীয় সংগীতে অনুষ্ঠান শুরু হয়। তারপর নিয়মতান্ত্রিকভাবে খেলার একের পরে এক ইভেন্ট শেষ হয় তারপর শুরু হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান মূলত দেশীয় সাংস্কৃতিকে প্রদর্শনীর বিভিন্ন গানে ছাত্রছাত্রীরা পারফরম্যান্স করে।
বরেণ্য অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার কামরুল হাসান তিনি বলেন ,শিক্ষা সাংস্কৃতি নিয়ে একসঙ্গে ছাত্র-ছাত্রীদের যুগোপযোগী করে তৈরি করার জন্য বিশেষভাবে বিদ্যালয়টি কাজ করে যাচ্ছে।
সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নাজিম উদ্দিন বাঘা ।
শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন ওয়ালটন গ্রুপের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান সরকার।
বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন গাজীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আজহার হোসেন তালুকদার সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শহিদ সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বাচ্চু
উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, শ্রীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক কৃষি বিষয়ক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম ,৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার সাহাবুদ্দিন ঢালি ম্যানেজিং কমিটির ডাক্তার সাইফুল ইসলাম সহ অন্যান্যরা।
প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমানের এমএ ,সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম বিশেষ আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন।
প্রধান শিক্ষক মাহিনুর রহমান বলেন ৭৭% এ প্লাস সহ শতভাগ পাশ নিয়ে সর্বক্ষণিক ছাত্র-ছাত্রীদের দেখাশোনা সহ আধুনিক শিক্ষায় ম্যানেজিং কমিটির সার্বিক সহায়তায় বিদ্যালয় এগিয়ে যাচ্ছে, এবছর ১০ জন বৃত্তি পেয়েছে তার মধ্যে ৮ জন ট্যালেন্টপুল ২ জন সাধারণ গ্রেড । মুজিববর্ষে বিদ্যালয় আরো এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।