গল্প-কবিতার বই দিয়ে খেলার মাঠ থেকে কিশোরদের ঘরে পাঠালেন সহঃপুলিশ সুপার

প্রকাশিত: ৯:০৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১, ২০২০ প্রিন্ট করুন

আফজাল হোসেন(নিজস্ব প্রতিবেদক)- করোনা ভাইরাসের সংক্রামণ রোধে সরকারের নির্দেশে সকল প্রকার বিদ্যালয় বন্ধ। বিদ্যালয় বন্ধ থাকায়  ছুটিতে ঘরে থেকে অনেকটা একঘেয়েমীর জড়তা কাটাতে বাড়ির পাশেই ক্রিকেট খেলছিল জোবায়ের, রাতুল, প্রান্ত, শান্ত, শিহাবসহ প্রায় পনের-বিশজন কোমলমতি শিশু-কিশোর। তারা সকলেই স্থানীয় বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষার্থী।

হঠাৎ করে ওই খেলার মাঠে নজর পড়লো গাজীপুর জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার আল মামুনের।

সড়কের পাশে গাড়ি দাঁড় করিয়ে তিনি গেলেন খেলার মাঠে। ক্রিকেট খেলায়রত কোমলমতি শিশু-কিশোরদের ডেকে করোনা ভাইরাস সংক্রামনরোধে ঘরে থাকাসহ কয়েকটি সরকারী সিদ্ধান্তের কথা জানালেন। বিষন্ন মনে মাঠ থেকে ঘরে ফেরা শিশুদের হাতে তুলে দিলেন দেশের খ্যাতনামা লেখকদের গল্প-কবিতার বই।

বুধবার দুপুরে গাজীপুরের মাওনা-কালিয়াকৈর আঞ্চলিক সড়কের সলিংমোড় এলাকায় করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতা মূলক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে পুলিশের এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।

সহকারী পুলিশ সুপার আল মামুন বলেন, মরণঘাতী করোনা ভাইরাস আতঙ্কে আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীর অলস সময় পার করতে প্রতিটি খেলার মাঠে গিয়ে তাদেরকে বুঝিয়ে সবার হাতে একটি করে গল্প ও কবিতার বই দিয়ে তাদের বুঝিয়ে ঘরে ফেরাচ্ছি। আমি মনে করি তাতে করে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের অলস সময় ভালোভাবে কাটবে এবং মরণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে পারবে।

পুলিশের হাত থেকে গল্প-কবিতার বই পেয়ে দারুণ খুশি জোবায়ের-প্রান্ত। জোবায়ের-প্রান্ত জানান, আগে পুলিশ দেখে ভয় পেতাম। কিন্তু পুলিশ যে এত ভাল হতে পারে তা আজকে দেখলাম। এখন বাসায় গিয়ে পুলিশের দেয়া বই পড়ে সময় কাটাবো।