প্রেমের ফাঁদে ফেলে গার্মেন্টস কর্মীকে ৪ বন্ধু মিলে পালাক্রমে ধর্ষন

প্রকাশিত: ১:১২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৫, ২০২০ প্রিন্ট করুন

আফজাল হোসেন (নিজস্ব প্রতিবেদক): গাজীপুরের শ্রীপুরে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ডেকে নিয়ে এক গার্মেন্টস কর্মীকে ৪ বন্ধু মিলে গনধর্ষনের অভিযোগে ৩জনকে গ্রেপ্তার করেছে শ্রীপুর থানা পুলিশ।

গত শনিবার শ্রীপুরের বিভিন্ন স্থানে  অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে শুক্রবার ভিকটিম শ্রীপুর থানায় অভিযোগ দিলে তা মামলা হিসেবে রুজু হয়।

গার্মেন্টস কর্মী শারিরীকভাবে অসুস্থ থাকায় বর্তমানে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন একই উপজেলার সিংগারদিঘি গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে আব্দুর রউফ(২২),একই গ্রামের তাজউদ্দিনের ছেলে রাব্বি(২০),ভোলা চরফ্যাশন জিননগর গ্রামের চাঁনমিয়ার ছেলে শামীম(২০)। এ ঘটনায় জড়িত অপর অভিযুক্ত আসাদ মিয়া এখনও পলাতক।

নির্যাতিতার ভাষ্য, তার বাড়ী শ্রীপুর পৌর এলাকায়, সে গাজীপুর সদর উপজেলার একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক। করোনার কারনে কারখানা বন্ধ থাকায় বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। গত ছ’মাস আগে স্থানীয় কলেজপড়ুয়া যুবক রউফের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত বুধবার সন্ধ্যার আগে তার প্রেমিক কিছু কথা আছে বলে তাকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ী থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে সিংগারদিঘি গ্রামের রাব্বীদের বাড়িতে নিয়ে একটি কক্ষে আটকিয়ে ফেলে। এসময় রাব্বির অন্যান্য স্বজনরা আত্মীয়ের বাড়ীতে অবস্থান করায় বাড়ীটি ফাঁকা ছিল। সেখানে চার বন্ধু মিলে মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে পালাক্রমে তাকে রাতব্যাপী ধর্ষন করে। সে ধর্ষনে বাধা তৈরী করতে গেলে তাকে ব্যাপক মারধর করা হয়। সকাল হলে তাকে ফেলে চলে যায় অভিযুক্তরা। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় সে বাড়ী ফিরে আসে।

এ ব্যাপারে মামলার তদারকি কর্মকর্তা শ্রীপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক সোহেল রানা জানান,নির্যাতিতা শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় তাকে চিকিৎসার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে তার মেডিকেল পরীক্ষা করা হয়েছে। মামলার অভিযুক্তদের মধ্যে ৩জনকে গ্রেপ্তার করা হলেও ১জন এখনও পলাতক রয়েছে। তাকে ধরতে পুলিশ সচেষ্ট।