শ্রীপুরে অন্তঃসত্ত্বা নারী কে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক আটক।

প্রকাশিত: ১২:০২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৫, ২০২০ প্রিন্ট করুন

আফজাল হোসেন(নিজস্ব প্রতিবেদক):গাজীপুরের শ্রীপুরে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক নারীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।অভিযুক্ত ধর্ষক  উজ্জল মিয়া (৩২)কে আটক করেছে শ্রীপুর থানা পুলিশ।

ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের মাওনা উত্তরপাড়া গ্রামের সেলিম মিয়ার বাড়িতে।

অভিযুক্ত উজ্জল মিয়া মানিকগঞ্জ জেলার সদর থানার নয়ন কান্দি গ্রামের মৃত নাসির উদ্দিনের ছেলে। সে মাওনা উত্তরপাড়া গ্রামের শামীম মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থেকে ইলেক্ট্রিকের কাজ করতেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ভিকটিমের স্বামী সৌরভ মিয়া একই এলাকার সেলিম মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থেকে উজ্জল এর সাথে ইলেক্ট্রিকের কাজ করতো।এই সুবাদে তাদের বাড়িতে আগে থেকেই আসা-যাওয়া ছিল উজ্জলের।

গত ৭ জুলাই ভিকটিমের স্বামী সৌরভ মিয়া বাড়িতে না থাকায় উজ্জল মিয়া রাত আনুমানিক ১০ টার দিকে ওই নারীর ঘরে প্রবেশ করে তাকে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে তা ভিডিও ধারণ করে। পরে ওই ভিডিও তার স্বামীকে দেখাবে বলে ভয়-ভীতি দেখিয়ে পর্যায়ক্রমে আরো চার-পাঁচ দিন ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে ভিকটিম নিরুপায় হয়ে ধর্ষণের ঘটনাটি তার স্বামীর কাছে খুলে বলে।

ধর্ষণের বিষয়টি সৌরভ মিয়া বাড়িওয়ালা সেলিম মিয়া ও মাহবুবকে জানাইলে তাহারা ঘটনার বিষয়টি সুরাহা করিয়া দিবে বলিয়া সময়ক্ষেপন করিতে থাকে এবং ঘটনার বিষয়টি কাউকে বলিতে নিষেধ করে। এক পর্যায়ে সেলিম ও মাহবুব ভিকটিম ও তার স্বামী কে আটক রাখিয়া ভয়-ভীতি দেখাইয়া ধর্ষনের কোন ঘটনা ঘটে নাই এই বলিয়া ভিকটিমের নিকট হইতে মোবাইলে স্বীকারোক্তি নেয়। ভিকটিম প্রাণের ভয়ে তাদের কথামতো জবানবন্দি প্রদান করে।তারপর ভিকটিমকে ওই বাড়ি থেকে বের করে দিয়ে রুমে তালা লাগাইয়া দেয় সেলিম।

শ্রীপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক প্রদীপ চন্দ্র সরকার সাহা বলেন ওই ঘটনায় ধর্ষক উজ্জল মিয়া কে আটক করা হয়েছে।মামলার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।