প্রথম দিনেই সশস্ত্র বাহিনীর ৩ শতাধিক সদস্য টিকা নিলেন

প্রকাশিত: ৯:৩০ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২১ প্রিন্ট করুন

মহানগর বার্তা ডেস্কঃ বাংলাদেশ সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সদস্যদের করোনা টিকা দেওয়া কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে।
রবিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সেনাবাহিনীর সদস্যরা ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচ), নৌ বাহিনী সদস্যরা ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনা নৌ অঞ্চলে নৌবাহিনীর সব হাসপাতাল এবং বিমান বাহিনী সদস্যরা ঢাকার ঘাঁটি বাশারের মেডিক্যাল স্কোয়াড্রনে আনুষ্ঠানিকভাবে টিকা নিয়েছেন।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী: সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রবিবার থেকে শুরু হতে যাওয়া দেশব্যাপী করোনার ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রমের আওতায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচ) ঢাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে সেনাবাহিনীর সদস্যদের মধ্যে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়।

ভারপ্রাপ্ত সেনাবাহিনী প্রধান কোয়াটার মাস্টার জেনারেল (কিউএমজি) লেফটেন্যান্ট জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ প্রধান অতিথি হিসেবে এ টিকাদান কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। পরে সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ (সিজিএস) লেফটেন্যান্ট জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসান, প্রথমে টিকা গ্রহণ করেন। পরে সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা টিকা গ্রহণ করেন।

উদ্বোধনী দিনে প্রায় ২০০ জন সেনাসদস্যদের টিকা প্রয়োগ করা হয়। টিকা গ্রহণকারী সব সেনাসদস্য কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সুরক্ষা (surokkha.gov.bd) ওয়েবসাইটের মাধ্যমে নিবন্ধন শেষ করেন। এছাড়াও, দেশের অন্যান্য সব সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালেও একযোগে এ টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়।

প্রতিদিন নিবন্ধনধারীদের মধ্য থেকে প্রায় ৫০০ জনকে টিকা দেওয়া হবে। এ অনুষ্ঠানে ঊধ্বর্তন সেনা কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন পদবীর সামরিক ও অসামরিক সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ নৌবাহিনী: করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সারাদেশে একযোগে টিকাদান কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনা নৌ অঞ্চলে নৌবাহিনীর সব হাসপাতালে রবিবার সকাল থেকে এ টিকাদান শুরু হয়। নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল এম শাহীন ইকবাল ঢাকাস্থ বানৌজা হাজী মহসীনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। এ টিকা দেওয়ার মাধ্যমে করোনামুক্ত বাংলাদেশ হবে মুজিববর্ষের শ্রেষ্ঠ উপহার বলে প্রধান অতিথি আশা প্রকাশ করেন।

নৌবাহিনীর সামরিক ও অসামরিক সদস্যদের সকাল ৯টা থেকে ১০টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত টিকা প্রদান করা হচ্ছে। এর আগে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী সব সামরিক ও অসামরিক নৌ সদস্যদের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী: দেশব্যাপী কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রমের আওতায় বাংলাদেশ বিমান বাহিনী ঘাঁটি বাশারের মেডিক্যাল স্কোয়াড্রন, ঢাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে বিমান বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত এ টিকাদান কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। টিকাদান কর্মসূচি উদ্বোধনের সময় বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান প্রথমে টিকা গ্রহণ করেন। পরে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও অন্যান্য সদস্যদের করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া হয়।

উদ্বোধনী দিনে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ৩০ জন সদস্যকে টিকা প্রয়োগ করা হয়। টিকা গ্রহণকারী বিমান বাহিনীর সব সদস্য কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (surokkha.gov.bd) ওয়েবসাইটের মাধ্যমে নিবন্ধন শেষ করেন।

এছাড়াও, বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর সব ঘাঁটিতে একযোগে এ টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ওই টিকাদান কর্মসূচিতে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর  ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়: প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. আবু হেনা মোস্তফা কামাল ঢাকা সিএমএইচে টিকা গ্রহণ করেন। পরে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রায় ৫০ জন ঊর্ধ্বর্তন কর্মকর্তা টিকা গ্রহণ করেন।