বাড়ছে ব্যয়ের বোঝা,খাবার ‍জুটলেও মিলছে না পুষ্টি

প্রকাশিত: ১১:০৪ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২১, ২০২২ প্রিন্ট করুন

মহানগর বার্তা,ঢাকাঃ বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, দেশের মানুষের গড় মাথাপিছু আয় আড়াই লাখ টাকা। সে হিসাবে একজন মানুষের মাসিক আয় ২০ হাজার টাকার বেশি। তবে ঢাকায় ১০ হাজার টাকারও কম বেতনে জীবন চালাতে হচ্ছে অনেককেই। তাদেরই একজন নাজমুল হোসেন, তেজগাঁওয়ের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে গাড়ি চালিয়ে মাসে ৯ হাজার টাকা বেতন পান তিনি। অন্যান্য আয় মিলিয়ে মাসে তার হাতে আসে প্রায় ১৫ হাজার টাকা।

গত ছয় বছরে বাজারদরে দফায় দফায় উল্লম্ফন ঘটলেও গাড়িচালক নাজমুলের আয় একই রয়ে গেছে। ফলে সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে তাকে।

সরকারের মন্ত্রীরা মানুষের ক্রয়ক্ষমতা ‘কয়েকগুণ বেড়ে যাওয়ার’ দাবি করে এলেও নিজের বাজার কাটছাঁট করেই চলতে হচ্ছে নাজমুলকে। মাছ-ডিম খাওয়া এখন প্রায় স্বপ্নের মতো হয়ে গেছে তার জন্য। মাস টানতে হচ্ছে ডাল, ভর্তা ও সবজি খেয়ে। আয় ও ব্যয়ের ভারসাম্য ধরে রাখতে হিমশিম খাওয়া সংসারে তাই ‘পেট ভরে’ এমন খাবারই চলছে বহুদিন ধরে; খাবারের তালিকা থেকে দিন দিন ছাঁটাই হচ্ছে পুষ্টিকর খাবার।
নাজমুল জানান, এখন এমন খাবারই বেছে নিতে হচ্ছে, যাতে কেবল ‘বাঁচা যায়’।

যেভাবে চড়ছে দামঃ

মহামারীর পর ইউক্রেইন-রাশিয়া যুদ্ধের কারণে বিশ্ব অর্থনীতি অস্থির হয়ে ওঠার মধ্যে বাংলাদেশেও দ্রব্যমূল্য চড়ছে। দেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে কম দামে খাওয়ানোর জন্য সরকার থেকে টিসিবির মাধ্যমে চেষ্টা করা হয়। ওদিকে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তের কিছু দিন পরপর জিনিসপত্রের ঊর্ধ্বমুখী দরে নাকাল দশা। ফলে আপস করতে হচ্ছে খাবারের মানে।

সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ প্রতিদিন বাজারদরের যে তালিকা দেয়, তাতে গত এক বছরে দেশি পেঁয়াজ, আমদানি করা রসুন ও আদা ছাড়া সব নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে। জুলাইয়ের বাজারদরে দেখা গেছে, এক বছরের ব্যবধানে চিকন চালের দাম বেড়েছে ১৫ শতাংশ। মাঝারি চাল প্রায় ৯ শতাংশ ও মোটা চালের দাম ৪ শতাংশ বেড়েছে। খোলা আটা ৩২ শতাংশ, প্যাকেট আটা ৫২ শতাংশ, খোলা ময়দা প্রায় ৫১ শতাংশ, প্যাকেট ময়দা ৫৪ শতাংশ বেশি টাকায় কিনতে হচ্ছে।

মানভেদে মসুর ডালের দাম বেড়েছে ২৬ থেকে ৪৪ শতাংশ, মুগ ডাল বেড়েছে প্রায় ৪ শতাংশ। ব্রয়লার মুরগীর দাম দিতে হচ্ছে ৯ শতাংশেরও বেশি।ডিমের দাম প্রায় ১৫ শতাংশ, আলুর ১৯ শতাংশ, চিনির ১৬ শতাংশ, লবণের দেড় শতাংশ বেড়েছে।