ইউক্রেনে অস্ত্র পাঠানো নিয়ে দ্বন্দ্বে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত: ৯:১০ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২২ প্রিন্ট করুন

মহানগর বার্তা ডেস্কঃ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বুধবার ঘোষণা করেছে যে, তারা ইউক্রেনে আরো চারটি উন্নত মাল্টিপল-রকেট লঞ্চার যান পাঠাবে। এর আগে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ হুঁশিয়ার করেছেন, ইউক্রেনের হাতে পশ্চিমা দূরপাল্লার অস্ত্র আসার পর সেদেশে রাশিয়ার ভৌগলিক লক্ষ্য শুধু ডনবাস দখলের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকছে না।

মার্কিন এ দূরপাল্লার রকেট লঞ্চারগুলি নির্ভুল-নির্দেশিত লক্ষ্যে আঘাত হানতে পারে। এটি বিমান হামলার থেকে ফেলা বিধ্বংসী বোমার মতোই বিশাল এলাকায় জুড়ে ক্ষতিসাধন করতে পারে। এটি নতুন দীর্ঘ-পাল্লার অস্ত্রের একটি অংশ যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বহিরাগত ইউক্রেনীয় সামরিক বাহিনীকে সরবরাহ করছে। এগুলো রাশিয়ার সামরিক শক্তির মোকাবিলায় ওয়াশিংটনের সংকল্প প্রমাণ করে। কিন্তু সম্প্রতি যুদ্ধক্ষেত্রে রাশিয়ার অবিচলিত অবস্থান এবং ক্রমবর্ধমান লাভের বিপরীতে পশ্চিমা মিত্ররা অস্ত্রের জন্য ইউক্রেনের আপাতদৃষ্টিতে অতৃপ্ত ক্ষুধা বজায় রাখার জন্য সংগ্রাম করছে। পাশাপাশি ইউক্রেনীয় এবং আমেরিকান কর্মকর্তাদের মধ্যে অস্ত্র দেয়া নিয়ে মতবিরোধ রয়েছে। বুধবার পেন্টাগনে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে, প্রতিরক্ষা সচিব লয়েড জে অস্টিন বলেন, আরও চারটি উন্নত মাল্টিপল রকেট লঞ্চার দেয়ার মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ ইউক্রেন এ জাতীয় মোট ১৬টি অস্ত্র পেল।
ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির একজন উপদেষ্টা মাইখাইলো পোডোলিয়াক জুন মাসে বলেছিলেন যে, রাশিয়া যে শক্তিগুলো মাঠে নামাতে পারে তার সাথে আরও ভালভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিদ্বতা করার জন্য ইউক্রেনের ৩০০টি মাল্টিপল-লঞ্চ রকেট সিস্টেম এবং ৫০০টি ট্যাঙ্কের প্রয়োজন। এটি ইউক্রেনকে যে প্রতিশ্রæতি দেয়া হয়েছিল তার চেয়ে কয়েকগুণ বেশি। ইউরোপ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চ গ্যাসের দাম এবং জাতীয় বলিদানের জন্য ক্রমবর্ধমান চাহিদার মধ্যে আমেরিকান সংকল্প কতদিন স্থায়ী হবে সেই প্রশ্নটিও অস্ত্র স্থানান্তর নিয়ে উদ্ভ‚ত। বাইডেন প্রশাসনও অস্ত্র সরবরাহ করতে দ্বিধাগ্রস্ত ছিল যা রাশিয়ার ভুখন্ডের পৌঁছাতে পারে এবং সম্ভাব্যভাবে একটি বিস্তৃত যুদ্ধকে স্পর্শ করতে পারে।

রাশিয়ান বাহিনীর লাগাম টেনে ধরার জন্য কী প্রয়োজন তা নিয়ে পশ্চিমে বিতর্ক চলতে থাকায়, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ভি ল্যাভরভ বুধবার বলেছেন যে ইউক্রেনে রাশিয়ার উচ্চাকাঙ্খা এখন দেশটির পূর্বাঞ্চলের বাইরে প্রসারিত হয়েছে। রাষ্ট্রীয় টিভি রাশিয়ান টেলিভিশনের (আরটি) সাথে এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে ল্যাভরভ বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো দূরপাল্লার রকেট ও কামান সরবরাহ বাড়িয়ে দেওয়ার রাশিয়া তাদের ‹বিশেষ সামরিক অভিযানের› ভৌগলিক লক্ষ্য এরই মধ্যে পূর্বের ডনবাস ছাড়িয়ে দক্ষিণের খেরসন এবং জাপোরোৎজিয়া অঞ্চলে প্রসারিত করেছে। অর্থাৎ, রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রকারান্তরে হুমকি দেন পূর্বের ডনবাসের বাইরেও আরো এলাকা দখলের লক্ষ্য নিচ্ছে রাশিয়া। তিনি যুক্তি দেন, ইউক্রেনের নিয়ন্ত্রণে থাকা এলাকা থেকে পশ্চিমা এসব দূরপাল্লার অস্ত্র যাতে রাশিয়ার ভূন্ডের হুমকি তৈরি না করতে পারে সেজন্যই এই সিদ্ধান্ত নিতে হচ্ছে।

পুতিনের স্বাস্থ্য খুবই ভালো আছে : রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের স্বাস্থ্য খারাপ হয়ে পড়েছে এমন কোন গোয়েন্দা তথ্য নেই – বলছেন মার্কিন গুপ্তচর সংস্থা সিআইএর পরিচালক। বেশ কিছুকাল ধরে সংবাদমাধ্যমে জল্পনা চলছে যে পুতিন সম্ভবতঃ ক্যান্সারের মত কোন স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগছেন – কিন্তু এসব খবর কখনোই নিশ্চিত করা যায়নি। সিআইএর পরিচালক উইলিয়াম বার্নস বলেন, এরকম কিছু বলার মতো কোন প্রমাণ নেই। তিনি ঠাট্টা করে বলেন, পুতিনকে দেখে মনে হয় তার স্বাস্থ্য ‘খুব বেশি রকমের ভালো।’ এ বছরই পুতিনের বয়স ৭০ পুরো হতে যাচ্ছে। তার ভগ্নস্বাস্থ্যের খবর আবারো উড়িয়ে দিয়ে ক্রেমলিন বলেছে, এসব রিপোর্ট ‘ভুয়া ছাড়া কিছুই নয়।’